নাচোলে মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়ে মারধরের শিকার হলেন চার নারী

20

চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে সমিতির নিবন্ধন করতে গিয়ে মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে মারধরের শিকার হয়েছেন আদিবাসীসহ চার নারী। এসময় ক্ষুব্ধ নারীদের হাতে লাঞ্চিত হয়েছেন উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা শিরিন আকতার। আহত অবস্থায় নেজামপুর ইউনিয়নের ধরইল দিঘিপাড়া গ্রামের নগেন টুডুর স্ত্রী মর্জিনা (৪৫), নাচোল ইউনিয়নের পশ্চিম লক্ষনপুর গ্রামের রুবিন হেমরমের স্ত্রী এলিনা মার্ডি (৩০), হাঁকরইল গ্রামের আইনুদ্দিনের স্ত্রী মাতুয়ারা (৩১) ও বাজে হাঁকরইল গ্রামের আনারুল ইসলামের স্ত্রী নুরুন নাহার (৩২) কে নাচোল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
আহত নারীরা অভিযোগ করেন, নাচোল নারী উন্নয়ন সংস্থা নামে একটি সমিতি নিবন্ধনের জন্য তারা দীর্ঘদিন আগে উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কাছে আবেদন করেন। কিন্তু কোন কারণ ছাড়ায় মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা শিরিন আকতার তাদের কাজ করে দিচ্ছিলেন না। বিষয়টি উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জান্নাতুন নঈম মুন্নিকে জানানো হলে তার পরামর্শে বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে আদিবাসীসহ আড়াই’শ নারী সমিতির নিবন্ধনের জন্য মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা শিরিন আক্তারের কার্যালয়ে যান। এসময় মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা তাদের সাথে অশালিন আচরণ করলে উভয় পক্ষের মধ্যে কথাকাটাকাটির ঘটনা ঘটে। একপর্যায়ে তার নির্দেশে অফিসের কর্মচারীরা নারীদের মারধর করলে চারজন আহত হয়। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তাকেও লাঞ্চিত করে উপস্থিত নারীরা। খবর পেয়ে নাচোল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। পরে উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল কাদের উভয় পক্ষের কথা শুনে বিষয়টি মিমাংসার চেষ্টা করেন।
উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা শিরিন আকতার জানান, তার অফিসের লোকজন কাউকে মারেনি। বরং ওই নারীরাই তাকে মারধর করেছেন।
নাচোল থানার ওসি চৌধুরী জোবায়ের আহম্মেদ জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। তবে এই ঘটনায় থানায় কেউ অভিযোগ করেনি।

LEAVE A REPLY